Home / অর্থ-বাণিজ্য / এবার যমুনায় হচ্ছে ফোরলেন রেলসেতু

এবার যমুনায় হচ্ছে ফোরলেন রেলসেতু

চট্টগ্রাম, ২৬ মে (অনলাইনবার্তা): বিদ্যমান বঙ্গবন্ধু সেতুকে রক্ষা করতেই এবার এর পাশে আলাভাবে ফোরলেন ডুয়েলগেজ রেলসেতু নির্মাণের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সরকার।

রেলপথ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) সচিব শশী কুমার সিংহের সঙ্গে কথা বললে এ তথ্য জানা যায়।

বঙ্গবন্ধু সেতু বাংলাদেশের পূর্বাঞ্চল ও পশ্চিমাঞ্চলের মধ্যে সংযোগ স্থাপন করে দুই অংশকে একত্রিত করেছে। সড়কের পাশাপাশি সেতুতে রেল সংযোগও রয়েছে। তবে এই রেল সংযোগ বর্তমানে না থাকার সমতুল্য। সেতুতে কচ্ছপ গতিতে চলে ট্রেন। ইচ্ছে করলে কোনো যাত্রী দৌঁড়ে ট্রেনের আগেই সেতু পার হতে পারবেন। কারণ এর আগে কয়েকবার সেতুতে বড় ধরনের দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পেয়েছেন যাত্রীরা। কারণ ট্রেন আউটার সিগনালিং খাঁচা ভেঙে ফেলেছে দুস্কৃতকারীরা। বঙ্গবন্ধু বহুমুখী সেতুতে ৪ দশমিক ৮ কিলোমিটার রেল সংযোগ এখন এক আতঙ্কের নাম।

এই আতঙ্ক থেকে বাংলাদেশের উত্তরবঙ্গ, পূর্বাঞ্চল ও পশ্চিমাঞ্চলের মানুষকে পরিত্রাণ দিতে এবং বিদ্যমান বঙ্গবন্ধু সেতুকে রক্ষা করতেই এবার বঙ্গবন্ধু সেতুর পাশে আলাভাবে আরও একটি রেলসেতু নির্মাণ করার সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। মহাসড়কের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে ফোরলেন ডুয়েলগেজ রেলসেতু নির্মাণ করা হবে। যাতে করে ওয়াগন ও কন্টেইনার বাল্ক অধিক পরিমাণে বহন করা যায়।

ফলে উত্তর বঙ্গ, পূর্বাঞ্চল ও পশ্চিমাঞ্চলের মানুষ নিরাপদ ও দ্রুতগামী রেল যোগাযোগ ব্যবস্থা পেতে যাচ্ছে। বর্তমানে রেলপথ মন্ত্রণালয় ‘যমুনা রেলওয়ে সেতু নির্মাণ প্রকল্প’ তৈরির কাজ নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন। যাতে করে প্রকল্পের কাজ দ্রুত সময়ে শুরু করা যায়। কারণ বর্তমানে যাত্রীবাহী ছাড়া কোনো ভারী মালবাহী ট্রেন এ সেতুর উপর দিয়ে চলাচল করতে পারছে না। সেতুর বর্তমান অবস্থার কথা চিন্তা করেই সরকার এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
তবে এর আগে পদ্মা সেতু হয়ে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিম অংশে নতুন রেলওয়ে সংযোগ স্থাপনের লক্ষ্যে ৩৪ হাজার ৯৮৮ কোটি ৮৬ লাখ টাকার প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদ (একনেক) সভা। ডাবল ডেকার পদ্মাসেতুর নিচ দিয়ে চলবে ট্রেন। চলতি বছরের মে মাসে প্রকল্পটি অনুমোদন দেওয়া হয়।

অন্যদিকে পদ্মা নদীর উপরে যেভাবে ১ দশমিক ৮ কিমি সেতুটির দৈর্ঘের লালন শাহ সড়ক সেতু  ও হার্ডিঞ্জ ব্রিজ রেল সেতু অদূরে অবস্থান করছে। একইভাবে পদ্মার মতো যমুনায় বঙ্গবন্ধু সেতু ও রেলসেতু অবস্থান করবে। ইতি মধেই উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাবনা (ডিপিপি) তৈরির কাজ সম্পূর্ণ হয়েছে।

যমুনায় রেল সেতু নির্মাণ প্রসঙ্গে সচিব শশী কুমার সিংহ  বলেন, বর্তমানে ঝুঁকি নিয়ে বঙ্গবন্ধু সেতুতে ট্রেন চলাচল করছে। সেতুর উপরে ধীরগতিতে রেলপথে যাতায়াত করতে হয়। এছাড়াও আমরা ভারী পণ্য পরিবহন করতে পারছি না। ফলে যম‍ুনা নদীতে বঙ্গবন্ধু সেতুর পাশ দিয়ে আলাদা রেল সেতু নির্মাণের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমরা ইতিমধ্যেই জাইকার কাছ থেকে ঋণ পেতে যাচ্ছি সেতুটি নির্মাণে। দ্রুত সময়ের মধেই প্রকল্পটি পাশ করানো হবে। এই বিষয়ে সরকারের উচ্চ পর্যায়ে আশ্বাস পাওয়া গেছে।’

x

Check Also

আরো আট নারী ও শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ

সাভারের আশুলিয়ায় বন্ধুদের সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে স্থানীয় একটি কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা দুই ...