Home / জেলা সংবাদ / খাগড়াছড়িতে শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবস পালিত

খাগড়াছড়িতে শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবস পালিত

আবু বকর ছিদ্দিক,খাগড়াছড়িঃ
খাগড়াছড়িতে র্যালি শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভার মাধ্যমে শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবস পালিত হয়েছে। শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবস উপলক্ষ্যে বুধবার সকাল ৯টায় খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসনের উদ্যেগে এক র্যালির আয়োজন করা হয়। র্যালির উদ্ভোধন করেন সাবেক সাংসদ ও ভারত প্রত্যাগত শরর্ণাথী বিষয়ক টাক্সফোর্স চেয়ারম্যান যতীন্দ্র লাল ত্রিপুরা। র্যালিটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে খাগড়াছড়ি টাউন হলে বঙ্গবন্ধুসহ শহীদ বুদ্ধিজীবিদের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পন করারর মাধ্যমে শেষ হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক মোঃ ওয়াহিদুজ্জামানের খাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার মোঃ মজিদ আলী,পৌর মেয়র রফিকুল ইসলাম প্রমূখ।

খাগড়াছড়িতে বুদ্ধিজীবি দিবস উপলক্ষ্যে জেলা আওয়ামীলীগের র‌্যালি  আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত
শোক র্যালি, আলোচনা সভাসহ বিভিন্ন আয়োজনের মধ্যদিয়ে শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবস পালন করেছে খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগ। শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবস উপলক্ষ্যে বুধবার সকাল ১০টায় খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের অস্থায়ী কার্যালয় থেকে এক শোক র্যালি বের হয়। এতে নেতৃত্ব দেন খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বাবু কংজরী চৌধুরী। র্যালিটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে জেলা শহরের টাউন হলে গিয়ে শেষ হয়।এসময় বঙ্গবন্ধুসহ শহীদ বুদ্ধিজীবিদের স্মৃতি ভাস্কর্যে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়। পরে এক আলোচনা সভা অনুৃষ্ঠিত হয়। এতে বক্তারা বলেন, পাক হানাদার বাহিনী দেশকে বুদ্ধিজীবি শূন্য করার হীন উদ্যেশ্যে এদেশের বিশিষ্ট নাগরিকদেন নির্মম হত্যার মিশনে মেতে উঠেছিলো। তারা চেয়ে ছিলো আমাদেন বিজয় কেড়ে নিতে, কিন্তু তাদের সেই ষড়যন্ত্র সফল হয়নি। এসময় অন্যান্নদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগ এর উপদেষ্ঠা মন্ডলীর সদস্য নুর ন্নবী চৌধুরী, পাজেপ সদস্য ও আ’লীগ নেতা মংশেইপ্রু চৌধুরী অপু,রণ বিক্রম ত্রিপুরা প্রমুখ।

গুইমারায় শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনসভা অনুষ্ঠিত
খাগড়াছড়ি জেলার গুইমারা উপজেলায় শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবস উপলক্ষ্যে গুইমারা উপজেলা প্রশাসনের উদ্যেগে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। বুধবার সকালে গুইমারা কলেজ অডিটোরিয়ামে এই আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, শহীদ বুদ্ধিজীবিদের হত্যার মাধ্যমে পাক হানাদার বাহিনী আমাদের বিজয় কেড়ে নিতে চেয়েছিলো, কিন্তু তারা সফল হতে পারেনী। শহীদ বুদ্ধিজীবিদের নির্মমভাবে হত্যা করার মাত্র দুই দিন পর আমরা চূড়ান্ত বিজয় লাভ করি।
এসময় উপস্থিত ছিলেন গুইমারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বি এম মশিউর রহমান, গুইমারা উপজেলা আওয়ামীলীগ সেক্রেটারি ও ইউপি চেয়ারম্যান বাবু মেমং মারমা, গুইমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা যোবায়ের উল হক, গুইমারা কলেজের অধ্যক্ষ নাজিম উদ্দিন প্রমূখ।

আরডি/ এসএমএইচ/ ১৫ ডিসেম্বর ২০১৬

x

Check Also

আরো আট নারী ও শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ

সাভারের আশুলিয়ায় বন্ধুদের সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে স্থানীয় একটি কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা দুই ...