Home / বাংলাদেশ / ঘরে তালা ঝুলিয়ে মতিঝর্ণা থেকে মানুষ সরাল প্রশাসন

ঘরে তালা ঝুলিয়ে মতিঝর্ণা থেকে মানুষ সরাল প্রশাসন

চট্টগ্রাম, ২১ মে (অনলাইনবার্তা): ঘূর্ণিঝড় রোয়ানূর প্রভাবে পাহাড় ধসের আশঙ্কায় ধসপ্রবণ এলাকা মতিঝর্ণা, একে খান ও আকবর শাহ এলাকা থেকে মানুষদের নিরাপদ আশ্রয়কেন্দ্রে সরিয়ে নিয়ে আসে জেলা প্রশাসন।

এর মধ্যে বারবার তাগাদা দেওয়া সত্বেও মতি ঝরণা এলাকায় পাহাড়ের পাদ দেশ থেকে মানুষজন সরে আসতে না চাওয়ায় জেলা প্রশাসন নিজ উদ্যোগে ওই এলাকার ঘরগুলোতে তালা ঝুলিয়ে দেয়।  ফলে একপ্রকার বাধ্য হয়ে আশ্রয়কেন্দ্রে চলে যায় ঝুঁকিপূর্ণ এই এলাকার মানুষেরা।

শনিবার দুপুরে এ কার্যক্রম চালায় জেলা প্রশাসন।

রাত সাড়ে ৭টায় চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসে এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান জেলা প্রশাসক মেজবাহ উদ্দিন।

জেলা প্রশাসক বলেন, ‘বিভিন্ন মহল থেকে আমাদেরকে ‘রোয়ানু’র প্রভাবে ব্যাপক পাহাড়ধসের আশঙ্কার কথা জানানো হয়েছিল। এ ব্যাপারে আমরা খুব বেশি সতর্ক ছিলাম। আমরা যথেস্ট প্রস্তুতিও নিয়েছিলাম। এ লক্ষ্যে শনিবার সকাল থেকে মতিঝর্ণা, এ কে খান ও আকবর শাহ এলাকা থেকে মাইকিং করে মানুষদের নিরাপদ আশ্রয়কেন্দ্রে চলে যাওয়ার জন্য অনুরোধ করি।  একে খান ও আকবর শাহ এলাকার পাহাড়ের পাদদেশে অবস্থানরত মানুষদের মধ্যে বেশিরভাগই আশ্রয়কেন্দ্রে চলে আসলেও মতি ঝরণা এলাকা থেকে তেমন মানুষ আশ্রয়কেন্দ্রে যাচ্ছিল না। পরে আমরা নিজ থেকে তালা নিয়ে গিয়ে ওই এলাকার ঘরগুলোতে তালা ঝুলিয়ে দিই।এতে তারা একপ্রকার বাধ্য হয়ে আশ্রয়কেন্দ্রে চলে আসে। ’

মেজবাহ উদ্দিন বলেন, ‘মতিঝর্ণা এলাকার পাহাড়ের পাদ দেশ এলাকা থেকে সব মানুষকে পুনর্বাসন করা এখনও আমাদের পক্ষে সম্ভব হয়ে উঠেনি।তবে দুর্যোগের সময় তাদের নিরাপদ আশ্রয় কেন্দ্রে নিয়ে আসার জন্য জোর চেষ্টা চালিয়ে যাই। ’

উল্লেখ্য ২০০৮ সালের ১৮ আগস্ট মতি ঝরণা এলাকায় পাহাড় ধসে ১১ জনের মৃত্যু হয়েছিল।

x

Check Also

আজ৩১ উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুতায়ন উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ বৃহস্পতিবার ২৭ আগস্ট ১৮ জেলার ৩১টি উপজেলার শতভাগ ...