Home / টপ নিউজ / চট্টগ্রামে জামায়াতের নিরুত্তাপ হরতাল

চট্টগ্রামে জামায়াতের নিরুত্তাপ হরতাল

চট্টগ্রাম, ৮ মে (অনলাইনবার্তা): মানবতাবিরোধী অপরাধ সংঘটনের দায়ে মৃত্যুদণ্ড পাওয়া জামায়াতের আমির মতিউর রহমান নিজামীর মৃত্যুদণ্ডাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে বহাল রাখার প্রতিবাদে চট্টগ্রামে নিরুত্তাপ হরতাল চলে। নগরীর প্রতিটি সড়কেই বাস, টেম্পু, সিএনজি অটোরিকশাসহ প্রায় সব ধরনের যানবাহন চলাচল ছিল স্বাভাবিক। বেশ কিছু প্রাইভেট কারও চলাচল করতে দেখা গেছে।

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (অপরাধ ও অভিযান) দেবদাস ভট্টাচার্য  জানান, জামায়াতের হরতালে নগরবাসীর জানমালের নিরাপত্তার স্বার্থে বিপুলসংখ্যক পুলিশ সদস্য দায়িত্ব পালন করছে। সকাল থেকে কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। বাস-টেম্পু-সিএনজি অটোরিকশা চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। সীমিত আকারে দূরপাল্লার যানবাহনও চলাচল করছে।

নগরীর চকবাজার-বারিকবিল্ডিং রুটের টেম্পু চালক আবদুর রহিম  জানান, পেটের দায়ে গাড়ি নিয়ে বের হয়েছি। দ্রব্যমূল্যের যে বেহাল দশা গাড়ি না চালালে পরিবার-পরিজন নিয়ে খাবো কী?

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নগরীর বেশিরভাগ কিন্ডারগার্টেন স্কুলে গ্রীষ্মকালীন ছুটি চলছে। এ ছাড়া যেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অভ্যন্তরীণ পরীক্ষা বা ক্লাস ছিল সেগুলো স্থগিত করা হয়েছে।
বৃহস্পতিবার ( মে ০৫) নিজামীর ফাঁসির রায় বহালের সুপ্রিম কোর্ট আপিল বিভাগের সিদ্ধান্তের পরপরই এক বিবৃতিতে এই হরতালসহ অন্যান্য রাজনৈতিক কর্মসূচির ঘোষণা দেয় জামায়াতে ইসলামী।

এক যুক্ত বিবৃতিতে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমির মকবুল আহমাদ ও ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান রোববার (৮ মে) সকাল ৬টা থেকে সোমবার (৯ মে) সকাল ৬টা পর্যন্ত দেশব্যাপী সর্বাত্মক হরতালের কর্মসূচি ঘোষণা করেন।
বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় প্রচার বিভাগের এম. আলম স্বাক্ষরিত ওই বিবৃতিতে অ্যাম্বুলেন্স, লাশবাহী গাড়ি, হাসপাতাল, ওষুধের দোকান, ফায়ার সার্ভিস ও সংবাদপত্রের গাড়িকে হরতালের আওতামুক্ত রাখা হয়।

এদিকে, জামায়াতের হরতালে ‘নাশকতা ও নৈরাজ্য’ রুখতে নগরীর ২৩টি স্থানে অংশ নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে আওয়ামী লীগ। নির্ধারিত স্থানগুলোর মধ্যে রয়েছে দারুল ফজল মার্কেট, অক্সিজেন মোড়, মুরাদপুর, কাঠগড়, চেরাগি পাহাড় মোড়, কালামিয়া বাজার, বিএফআইডিসি রোড, চকবাজার, কাপ্তাই রাস্তার মাথা, বহদ্দারহাট, ইপিজেড, দেওয়ানহাট মোড়, বারেক বিল্ডিং মোড়, বড়পোল, ওয়াসার মোড়, বটতলী, অলংকার, বাদামকলী, বন্দরটিলা, কেইপিজেড, রেলক্রসিং, ফকিরহাট ও সিটি গেট।সকাল ১০টায় আওয়ামী লীগ, ১৪ দল ও মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের সব শক্তিকে দারুল ফজল মার্কেট চত্বরে জড়ো হওয়ার অনুরোধ জানানো হয়েছিল।

x

Check Also

আরো আট নারী ও শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ

সাভারের আশুলিয়ায় বন্ধুদের সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে স্থানীয় একটি কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা দুই ...