যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বক্তব্যে উপস্থাপিত সহস্রাধিক তথ্য রয়েছে যার কোনো বাস্তব ভিত্তি নেই। এমনটাই জানিয়েছে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম।

যেখানে ক্ষমতা গ্রহণের পর থেকে ট্রাম্প এ পর্যন্ত ১ হাজারেরও বেশি বাস্তবতা বর্জিত ভুয়া দাবি উপস্থাপন করেছেন বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

ওবামা কেয়ার বাতিল করার চেষ্টার সময় ট্রাম্প তার সর্বশক্তি নিয়োগ করেছিলেন এ কাজে। এ সময় স্বাস্থ্য বিষয়ে যেসব তথ্য উপস্থাপন করেছিলেন তার মধ্যে বহু তথ্যই ছিল বাস্তবতা বর্জিত।

ওয়াশিংটন পোস্ট ট্রাম্পের এসব মিথ্যা ও অবাস্তব তথ্যের একটি হিসাব করেছে। তাদের তথ্য অনুযায়ী ট্রাম্প ২০ জানুয়ারি ক্ষমতা গ্রহণের পর থেকে এ পর্যন্ত ১,০৫৭টি অসত্য তথ্য উপস্থাপন করেছেন।

ট্রাম্প প্রতিদিন পাঁচটি করে ভুয়া বা ভুল তথ্য উপস্থাপন করেন বলে জানা গেছে ওয়াশিংটন পোস্টের তথ্যে। এছাড়া তিনি প্রায় ৩০টি ভুল তথ্য কমপক্ষে তিনবার করে উল্লেখ করেছেন।

এমনকি তিনি নিজের ক্ষমতায় আরোহনের বিষয়েও মিথ্যা তথ্য দিয়েছেন বলে জানিয়েছে সংবাদমাধ্যমটি। ট্রাম্প দাবি করেছেন, তার ক্ষমতায় আরোহনের অনুষ্ঠান এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বড়। কিন্তু ছবি ও তথ্য প্রমাণে দেখা যায়, বারাক ওবামার ২০০৯ সালের ক্ষমতা গ্রহণের অনুষ্ঠানে এর চেয়েও বেশি মানুষ ছিল।

ট্রাম্প দাবি করেছিলেন, মার্কিন ইমিগ্রেশন ব্যবস্থার কারণে মার্কিন ট্যাক্সদাতাদের বহু বিলিয়ন ডলার ব্যয় হয়। তবে ট্রাম্প যে রিপোর্টের ভিত্তিতে এ কথা বলেছিলেন সেখানে লেখা ছিল তা থেকে ভিন্ন তথ্য। তাতে উল্লেখ ছিল, অভিবাসীরা মার্কিন অর্থনীতিতে অবদান রাখে ট্যাক্স প্রদান করে ও অন্যান্য পাবলিক সার্ভিস গ্রহণ করে। ’

একইভাবে আরও বহু ভুল তথ্য উপস্থাপন করেছেন ট্রাম্প, যা তুলে ধরেছে বিভিন্ন মার্কিন গণমাধ্যম।

এসএমএইচ, বৃহস্পতিবার, ২৪ আগস্ট ২০১৭। ৯ ভাদ্র ১৪২৪