ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন অঞ্চল -৫ এর আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এস এম অজিয়র রহমান এর নেতৃত্বে এবং ১ এপিবিএন উত্তরা পুলিশ এর সহায়তায় আজ ২৬ অক্টোবর, বৃহস্পতিবার, মোহাম্মদপুরের নুরজাহান রোডে অবস্থিত এলাকায় তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন বাস্তবায়নে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালিত হয়। তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ আইন আইনানুসারে তামাকজাত দ্রব্যের সকল ধরনের বিজ্ঞাপন প্রচার প্রচারনা নিষিদ্ধ।এই বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদপুরের নুরজাহান রোড এলাকায় অবস্থিত মিনাবাজার চেইনশপকে ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো এর ব্যান্ডসন এ্যান্ড হেডজেস নামক তামাকজাত দ্রব্যের বিজ্ঞাপন প্রচারের জন্য ১,০০,০০০/-(এক লক্ষ) টাকা জরিমানা করা হয় ও বিজ্ঞাপনটি ধংস করা হয়। এই শাখাকে এর আগেও ৫০,০০০/- (পঞ্চাশ হাজার) টাকা জরিমানা করা হয়েছিলো। উল্লেখ্য একই অপরাধে গতকাল ২৫ অক্টোবর ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ সাজিদ আনোয়ারের নেতৃত্বে পরিচালিত ভ্রাম্যমান আদালতে মিরপুর ১১ নং এলাকায় অবস্থিত মিনাবাজার চেইনশপকে ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো এর ব্যান্ডসন এ্যান্ড হেডজেস নামক তামাকজাত দ্রব্যের বিজ্ঞাপন প্রচারের জন্য ১,০০,০০০/-(এক লক্ষ) টাকা জরিমানা করা হয়। উক্ত দুইটি ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনার সময় সহায়তায় ছিলেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের স্বাস্থ্য পরিদর্শক আব্দুল খালেক মজুমদার।

ম্যাজিস্ট্রেট মিনাবাজার কর্তৃপক্ষকে সাবধান করে বলেন যদি তারা একই অপরাধ পুনরায় করে তাহলে তাদের এর দ্বিগুন জরিমানা করা হবে। ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনার সময় ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের তামাক নিয়ন্ত্রণ প্রকল্প কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন এবং ঢাকা উত্তর ও দক্ষিন সিটি কর্পোরেশনকে উদ্বদ্ধুকরণের মাধ্যমে সিটি কর্পোরেশন আওতাধীন এলাকায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনায় সহায়তা প্রদান করছে ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন।

উল্লেখ্য যে, তামাক কোম্পানীগুলো তামাকজাত দ্রব্যের অধিক উৎপাদন ও মুনাফা লাভের আশায় তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন ভঙ্গ করে যুবসমাজকে ধূমপানে আকৃষ্ট করার লক্ষ্যে প্রতিনিয়ত অভিনব কৌশলে বিজ্ঞাপন প্রচার করে যাচ্ছে। তামাক কোম্পানীর এই কূট কৌশলকে প্রতিহত করতে এবং তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন বাস্তবায়নে ঢাকা শহরে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করছে।