টেকনাফের নাফ নদীতে ভাসমান অবস্থায় দুই শিশু ও তিন নারীসহ ছয় রোহিঙ্গার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে এসব মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।

টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাইন উদ্দিন খান এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, নাফ নদীর তীরের তিনটি পৃথক স্থানে মোট ছয়টি লাশ পড়ে রয়েছে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন। এ ব্যাপারে খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে। মিয়ানমারে নতুন করে সহিংস পরিস্থিতি সৃষ্টির পর থেকে এ পর্যন্ত নৌকাডুবি ও গুলিবিদ্ধ হওয়ার ঘটনায় মোট ৭১ জন রোহিঙ্গার মরদেহ পাওয়া গেছে বলেও জানান তিনি।

পুলিশ জানায়, বৃহস্পতিবার সকালে শাহ পরীর দ্বীপ এলাকায় নাফ নদী থেকে দুই শিশুসহ এক নারীর লাশ, টেকনাফের সাবরাং এলাকার নদীর পাড় থেকে দুই নারীর লাশ ও নোয়াখালী পাড়ার নদীর তীর থেকে এক পুরুষের ভাসমান লাশ উদ্ধার করা হয়।

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসার পথে সাগরে নৌকাডুবির ঘটনায় এ ছয় জন প্রাণ হারিয়েছে বলে ধারণা করছেন স্থানীয়রা।
এসএমএইচ// বৃহস্পতিবার ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৭। ২৩ ভাদ্র ১৪২৪