Home / টপ নিউজ / নিজামীর ফাঁসি কার্যকর

নিজামীর ফাঁসি কার্যকর

চট্টগ্রাম, ১০ মে (অনলাইনবার্তা): মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতে ইসলামীর আমির, সাবেক কৃষি ও শিল্পমন্ত্রী মতিউর রহমান নিজামীর মৃত্যুদণ্ডের রায় কার্যকর করা হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার রাতে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে নিজামীর মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়। এর আগে রাত ৮ টার দিকে মতিউর রহমান নিজামীর পরিবারের সদস্যরা কারাগারে এসে তার সঙ্গে শেষ বারের মতো দেখা করে গেছেন।

এর আগে রিভিউ আবেদন খারিজ করে মৃত্যুদণ্ড বহালের রায়ের পর নিজামীর আইনজীবী ও পরিবারের সদস্যরা কাশিমপুর কারাগারে দেখা করতে গেলে তিনি তাদের কাছে ওই সময়ই বলেছিলেন, আল্লাহ ছাড়া তিনি কারো কাছে ক্ষমা চাইবেন না।

আজ মঙ্গলবার বিকেলে নিজামী ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে প্রাণভিক্ষা চাইবেন না বলে জানিয়েছেন। এরপরই সরকারের পক্ষ থেকে রায় কার্যকরের চূড়ান্ত প্রস্তুতি নেয়া হয়।

২০১০ সালের ২৯ জুন ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের অভিযোগে করা একটি মামলায় মতিউর রহমান নিজামীকে জাতীয় প্রেসক্লাব থেকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা গ্রেফতার করে।

পরবর্তীতে ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় সংঘটিত মানবতবিরোধী অপরাধের মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়।

মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে ২০১৪ সালের ২৯ অক্টোবর মতিউর রহমান নিজামীকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১।

ওই বছর ২৩ নভেম্বর সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে আপিল আবেদন করেন মাওলানা নিজামী।

২০১৬ সালের ৬ জানুয়ারি প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে চার সদস্যের আপিল বেঞ্চ নিজামীর মৃত্যুদণ্ডাদেশ বহাল রেখে রায় দেন। আপিল বিভাগের রায়ে মৃত্যুদণ্ডের তিনটি ও যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের দুটি দণ্ডাদেশ বহাল রাখা হয়।

গত ১৫ মার্চ নিজামীর আপিলের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ করেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।

এর পর গত ২৯ মার্চ মাওলানা মতিউর রহমান নিজামী আপিল বিভাগের রায় পুনর্বিবেচনার (রিভিউ) আবেদন দায়ের করেন। ৭০ পৃষ্ঠার রিভিউ আবেদনে মোট ৪৬টি (গ্রাউন্ডে) যুক্তি দেখিয়ে মৃত্যুদণ্ড বাতিল করে খালাস প্রদান এবং অভিযোগ থেকে অব্যাহতির আরজি জানানো হয়।

গত ৫ মে নিজামীর রিভিউ আবেদন খারিজ করে মৃত্যুদ-বহাল রাখেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে চার সদস্যের আপিল বেঞ্চ।

৯ মে সোমবার বিকেল সাড়ে ৩টায় সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ রিভিউ আবেদন খারিজ করে দেওয়া পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ করেন। এরপর বিকেল ৫টার কিছু পর আপিল বিভাগের একটি প্রতিনিধিদল রায়ের কপি ট্রাইব্যুনালে পৌঁছে দেন।

এরপর আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল থেকে চার সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল সন্ধ্যা ৭টা পাঁচ মিনিটে রায়ের কপি নিয়ে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে যান। জ্যেষ্ঠ জেল সুপার জাহাঙ্গীর কবীর রায়ের কপি গ্রহণ করেন। পরে রাতেই নিজামীকে রিভিউ খারিজ করে দেওয়া পূর্ণাঙ্গ পড়ে শোনান। আজ মঙ্গলবার রাতে তার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়

মানবতাবিরোধী অপরাধে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতের আমির মতিউর রহমান নিজামীকে ফাঁসিতে ঝোলানোর প্রস্তুতির পাশাপাশি সতর্ক অবস্থান নিয়েছে ঢাকা, গাজীপুর, টাঙ্গাইল, সিরাজগঞ্জ, নাটোর আর পাবনা জেলার পুলিশ।

কারা কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে এমনটি নিশ্চিত হয়েই প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে এসব জেলার পুলিশ। নিজামীর ফাঁসির পর তার মরদেহ দাফনের জন্য নেওয়া হবে সাঁথিয়া উপজেলার মনমথপুর গ্রামের বাড়িতে।

ডিএমপি পুলিশ জানায়,  মরদেহ ঢাকার শাহাবাগ, মহাখালী, উত্তরা, গাজীপুরের চন্দ্রা হয়ে সাঁথিয়ায় নেওয়া হবে।

মরদেহ ঢাকা থেকে বাড়ি পর্যন্ত নেওয়া নির্বিঘ্ন করতে পুলিশ প্রশাসন এ সতর্কতা জারি করেছে। এজন্য ঢাকা থেকে সাঁথিয়া পর্যন্ত মহাসড়কের প্রতি আধা কিলোমিটার পর পর সংশ্লিষ্ট থানা পুলিশের সদস্যরা নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবেন।

মন্মথপুর গ্রাম। পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার ধোপাদহ ইউনিয়নের একটি গ্রাম। এইটি যুদ্ধাপরাধের দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতের আমির মতিউর রহমান নিজামীর নিজ গ্রাম। এ গ্রামের পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হবে তার মরদেহ। পরিবার ও স্বজনরা এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

সে অনুযায়ী মনমথপুর গ্রামের অবস্থিত পারিবারিক কবরস্থান পরিষ্কার করা হয়েছে। এরই মধ্যে স্থান নির্ধারণের কাজও সম্পন্ন করা হয়েছে। এখন শুধু অন্য আনুষ্ঠানিকতার অপেক্ষায় স্বজনরা।

তবে এ ব্যাপারে প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোনো কিছু জানানো হয়নি। মতিউর রহমান নিজামীর ইচ্ছাও জানা যায়নি। এরপরও স্বজনরা প্রাথমিকভাবে সেখানে তার মরদেহ দাফনের উদ্যোগ নিয়েছেন।
মঙ্গলবার (১০মে) বিকেলে মতিউর রহমান নিজামীর স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য জানা যায়।

x

Check Also

আরো আট নারী ও শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ

সাভারের আশুলিয়ায় বন্ধুদের সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে স্থানীয় একটি কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা দুই ...