Home / জেলা সংবাদ / নির্বাচন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে এমপির অনুসারীদের মিছিল বাঁশখালীতে

নির্বাচন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে এমপির অনুসারীদের মিছিল বাঁশখালীতে

চট্টগ্রাম, ২ জুন (অনলাইনবার্তা): উপজেলা নিবার্চন কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলামকে পিটিয়ে বাঁশখালীছাড়া করার পর এবার তার বিরুদ্ধে অনুসারীদের মাঠে নামিয়ে দিয়েছেন স্থানীয় সরকার দলীয় সংসদ সদস্য (এমপি) মোস্তাফিজুর রহমান।

বৃহস্পতিবার (০২ জুন) সকাল থেকে বাঁশখালী পৌরসভা সদরে সংসদ সদস্যের অনুসারী নেতাকর্মীরা মিছিল-সমাবেশ করছেন।  এতে নেতৃত্ব দিচ্ছেন সাংসদের ব্যক্তিগত সহকারি ও বড়উঠান ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী ‍তাজুল ইসলাম।

তাজুল ইসলামের জন্য প্রিজাইডিং অফিসার, সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার, পোলিং অফিসারসহ পছন্দের ভোটগ্রহণ কর্মকর্তা না পেয়ে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলামকে সংসদ সদস্য মারধর করেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।  এরপর নির্বাচন কমিশন বাঁশখালীতে ৪ জুন যে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল সেটা স্থগিত করেছে।  এছাড়া সংসদ সদস্যের বিরুদ্ধে মামলা করারও নির্দেশ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

তবে দুপুর পর্যন্ত কেউ মামলা করার জন্য বাঁশখালী থানায় যাননি বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রামের পুলিশ সুপার একেএম হাফিজ আক্তার।  তিনি  বলেন, আমরা প্রস্তুত আছি।  বাদি এজাহার দিলেই মামলা রেকর্ড করা হবে।

চট্টগ্রামের আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মো.আব্দুল ‍বাতেন  বলেন, এখনও আমরা মামলা দায়ের করিনি।  নির্বাচন কমিশনের লিখিত আদেশের জন্য অপেক্ষা করছি।

এদিকে আকস্মিক ঘটনায় উপজেলায় নির্বাচন স্থগিত হয়ে যাওয়ায় প্রার্থী ও সাধারণ ভোটারদের মধ্যে হতাশার সৃষ্টি হয়েছে।  এর মধ্যে সংসদ সদস্যের অনুসারীদের মিছিল-সমাবেশে বাঁশখালী পৌরসদরে বর্তমানে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, সকাল ১১টার দিকে সংসদ সদস্যের অনুসারী নেতাকর্মীরা মিছিল করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে প্রবেশ করে।  মিছিলে নেতৃত্ব দেন তাজুল ইসলাম।  উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে আগে থেকেই পুলিশ মোতায়েন ছিল।  নেতাকর্মীরা ঢোকার সময় প্রথমে পুলিশ বাধা দেয়।  তারা ‍বাধা অমান্য করে ভেতরে ঢুকে যায়।  এরপর পুলিশ তাদের মূল ফটকের বাইরে বের করে দেয়।

বাঁশখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.আলমগীর হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, মিছিল করে শ’দুয়েক নেতাকর্মী এসেছিল।  কোন অপ্রীতিকর ঘটনা তারা ঘটায়নি।

মিছিল শেষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ থেকে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলামকে দুর্নীতিবাজ ও বিএনপি-জামায়াতের দোসর উল্লেখ করে তার অপসারণ দাবি করা হয়।

অনুসারীদের রাস্তায় নামানোর বিষয়ে ‍জানতে চাইলে বাঁশখালীর সংসদ সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান  বলেন, আমি কাউকে মিছিল-সমাবেশ করতে বলিনি।  তারাই করছে।  আমি সংবাদ সম্মেলন করতে বলেছিলাম।

সংসদ সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান নিজে চট্টগ্রাম নগরীতে এসে সংবাদ সম্মেলন করবেন বলে জানিয়েছেন।  তবে সময় এখনও নির্ধারণ করেননি।

এদিকে ঘটনার পর থেকে নগরীতে অবস্থান করছেন উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলাম।  তিনি কর্মস্থলে যাননি বলে সূত্র জানিয়েছে।

x

Check Also

আরো আট নারী ও শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ

সাভারের আশুলিয়ায় বন্ধুদের সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে স্থানীয় একটি কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা দুই ...