Home / জেলা সংবাদ / পঞ্চগড়ে পুরোহিত হত্যার পর শোলাকিয়ায় পুলিশ হত্যা শফিউলের

পঞ্চগড়ে পুরোহিত হত্যার পর শোলাকিয়ায় পুলিশ হত্যা শফিউলের

চট্টগ্রাম, ১১ জুলাই (অনলাইনবার্তা): কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়া ঈদগাহ মাঠের কাছে পুলিশের ওপর হামলায় আটক শফিউল আলম এর আগেও জঙ্গি হামলা ও গলাকেটে হত্যার ঘটনা ঘটিয়েছেন। গত ২১ ফেব্রুয়ারি পঞ্চগড়ের শ্রীশ্রী সন্ত গৌড়ীয় মঠে যজ্ঞেশ্বর চন্দ্র রায়কে (৫০) গলা কেটে যারা হত্যা করেছেন সে তাদেরই একজন।

পঞ্চগড় পুলিশ বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

শোলাকিয়ায় হামলার ঘটনার পরই পুলিশ জানতে পারে আটক শফিউল আলম যজ্ঞেশ্বর হত্যার ঘটনায় পলাতক ৬ জনের একজন। দীর্ঘদিন ধরে পুলিশ তাকে খুঁজছিলো।

ওই হত্যা মামলার অভিযোগপত্রেও শফিউলের নাম এসেছে। এতে বলা হয়েছে, মোটরসাইকেলে করে শফিউলসহ তিনজন শ্রীশ্রী সন্ত গৌড়ীয় মঠে যায় ও যগেশ্বর চন্দ্রকে হত্যা করে।

এতে আরও জানানো হয়, ঘটনার আগের রাতে পঞ্চগড় পৌঁছে স্থানীয় জঙ্গি ও ওই মামলার অপর পলাতক আসামি মো. রানার বাড়িতে রাত যাপন করেন শফিউল। রানা দেবীগঞ্জ উপজেলার পূর্ব দেবীডুবা গ্রামের সাইদুল ইসলামের ছেলে। ওই বাড়ি থেকেই মোটরবাইকে করে মঠে যায় তারা তিনজন।

এদিকে, শোলাকিয়ার ঘটনা তদন্তে আরও জানা গেছে, কিশোরগঞ্জ শহরের নীলগঞ্জে এক সপ্তাহ আগে বাসা ভাড়া নিয়ে অবস্থান নেয় শফিউল আলম। রোববার (১০ জুলাই) ওই বাসা থেকে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) তদন্ত দল বিভিন্ন আলামত সংগ্রহ করে।

বাসা ভাড়া নেওয়ার ক্ষেত্রে মিথ্যার আশ্রয় নেওয়া হয়েছিলো বলেই ধারণা করা হচ্ছে।

ওই বাসার একজনের ভাষ্যমতে, বাসা ভাড়ার বিজ্ঞপ্তি দেখে ১ জুলাই ১৮-১৯ বছরের এক যুবক বাসা ভাড়া নিতে যায়। নিজের নাম জয়নাল আবেদিন ও কিশোরগঞ্জের সরকারি গুরুদয়াল কলেজের অর্থনীতি বিভাগের প্রথম বর্ষের ছাত্র বলে জানায়। আর চার জন একসঙ্গে থাকবে বলে নিচতলায় বাসা ভাড়া চায়। গ্রামের বাড়ি ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া উপজেলায় বলে উল্লেখ করলেও কোনও পরিচয়পত্র দেখাতে ব্যর্থ হয়।

কলেজ বন্ধের অজুহাত দেখিয়ে ছাত্রত্বের পরিচয়পত্র দেখাতে পারছে না, আর ঈদের পর বাড়ি থেকে জাতীয় পরিচয়পত্র এনে দেখাবে বলে কথা দিয়ে বাড়ি ভাড়া নেয়। ২ জুলাই থেকে ওই বাড়িতে থাকতে শুরু করে যুবকটি।

ঢাকা থেকে গিয়ে সিআইডির সাত সদস্যের একটি তদন্ত দল রোববার ওই বাসা থেকে বেশ কিছু মালামাল জব্দ করে। দুই রুমের ওই বাসায় চার সেট কাঁথা, বালিশ, গামছা, লুঙ্গি, ব্রাশ ইত্যাদি পাওয়া যায়। এতে ধারণা করা হচ্ছে বাসায় অন্তত চার জন ছিলো।

তদন্ত সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, শফিউল নীলগঞ্জ মোড়ের ওই বাসায় থাকার কথা স্বীকার করেছেন।

তবে এ হামলায় অন্তত আটজন জড়িত থাকার কথা বলেছেন তিনি।

x

Check Also

আরো আট নারী ও শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ

সাভারের আশুলিয়ায় বন্ধুদের সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে স্থানীয় একটি কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা দুই ...