Home / জেলা সংবাদ / পঞ্চম ধাপে চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ নিহত ৮

পঞ্চম ধাপে চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ নিহত ৮

চট্টগ্রাম, ২৮ মে (অনলাইনবার্তা): পঞ্চমধাপের দেশের ৪৪ জেলার ৮৬ উপজেলার ৭২০ ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। তবে আগের চারধাপের মতোই এদিনও প্রাণহানী ও সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে। নির্বাচন চলাকালে ৪ জেলায় ৮ জনের প্রাণহানী ঘটেছে। এর মধ্যে চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্য প্রার্থীও রয়েছে।

শনিবার (২৮ মে) সকাল ৮টা থেকে সবগুলো ইউপিতে একযোগে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। এর মধ্যে জামালপুরে ৪জন, চট্টগ্রামে ১, নোয়াখালীতে ২ ও কুমিল্লায় ১ জন নিহত হয়েছে।

চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলার কর্ণফুলী থানার বড়উঠান ইউনিয়নে ইয়াছিন নামে এক সদস্য প্রার্থী ছুরিকাঘাতে নিহত হয়েছেন। এসময় গুলিবিদ্ধ হয়ে আরও দু’জন গুরুতর আহত হয়েছেন।

দুপুর ১টার দিকে বড়উঠান ইউনিয়নের শাহ মীরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ সমর্থিত ও বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে আহত হন তিনজন।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়িতে কর্তব্যরত উপ পরিদর্শক (এসআই) জহিরুল ইসলাম  বলেন, গুরুতর আহতাবস্থায় ইয়াছিন নামে একজনকে হাসপাতালে আনার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

এছাড়া শরীফ (৩২) ও আলম (২০) নামে দু’জন গুলিবিদ্ধ অবস্থায় চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন বলে তিনি জানান।

ইয়াছিন বড়উঠান ইউনিয়নের ৬ নম্বর শাহ মীরপুর ওয়ার্ড থেকে সদস্য পদে প্রার্থী ছিলেন।  তবে তার কোনো রাজনৈতিক পরিচয় ছিলনা বলে জানিয়েছেন নগর পুলিশের উপ-কমিশনার (বন্দর) হারুনুর রশিদ হাজারী।

জামালপুর থেকে গোলাম রব্বানী নাদিমের পাঠনো তথ্যে জানা যায়, দেওয়ানগঞ্জ উপজেলায় ইউপি নির্বাচনে কেন্দ্র দখলের চেষ্টাকে কেন্দ্র করে দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ চলাকালে গুলিবিদ্ধ হয়ে চারজন নিহত হন।

সকালে পঞ্চম দফায় ইউপি নির্বাচনে ভোটগ্রহণের সময় দেওয়ানগঞ্জের খুটারচর ইবতেদায়ি দাখিল মাদ্রাসা কেন্দ্রে পুলিশের গুলিতে তিনজন ও আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী শাকিরুজ্জামান রাখালের গুলিতে একজন নিহত হয়েছেন বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে।

গুলিবিদ্ধ অবস্থায় বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন আরও অর্ধ শতাধিক।

নিহতরা হলেন-কুতুবেরচর গ্রামের নুর ইসলামের ছেলে জিয়াউর রহমান (৩৬), একই গ্রামের আমজাদ হোসেনের ছেলে নবীরুল (১৯), শেখপাড়ার আফজাল হোসেনের ছেলে আব্দুল মাজেদ ও একই গ্রামের নুর ইসলাম (৫৫)।

কুমিল্লার তিতাসে প্রতিপক্ষের সমর্থকদের হামলায় বর্তমান চেয়ারম্যান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী হাজী কামাল উদ্দিন (৫০) নিহত হয়েছেন।

শনিবার (২৮ মে) বিকেল ৩টার দিকে উপজেলার ৩নম্বর বলরামপুর ইউনিয়নের নাগেরচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত কামাল ওই ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান। এছাড়া নির্বাচন কমিশনের পঞ্চম তফসিলে অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিএনপি থেকে মনোনয়ন না পেয়ে তিনি আনারস প্রতীকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছিলেন।

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার ছয় নম্বর রাজগঞ্জ ও জিততলী  ইউপি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ চলাকালে দুইপক্ষের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে দু’জন নিহত হয়েছেন।

নিহতরা হলেন-সৈয়দ আহমদ উপজেলার রাজগঞ্জ ইউপির আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থক সৈয়দ আহমদ (৬৫) ও জিততলী  ইউপির  আওয়ামী লীগের প্রার্থীর সমর্থক ছাত্রলীগ কর্মী শাকিল (২২)।

শনিবার (২৮ মে) সকালে পঞ্চম দফায় ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে ভোটগ্রহণের সময় ইউনিয়নের রাজগঞ্জ ফাজিল মাদ্রাসা কেন্দ্র দখল করে গেলে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ও একই দলের বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে এ সংঘর্ষ হয়। এসময় বেশ কয়েকজন আহত হন। তাদের স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

x

Check Also

আরো আট নারী ও শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ

সাভারের আশুলিয়ায় বন্ধুদের সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে স্থানীয় একটি কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা দুই ...