Home / টপ নিউজ / প্রতিবন্ধীদের চাকরি দিতে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের মালিকদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান

প্রতিবন্ধীদের চাকরি দিতে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের মালিকদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান

নিজস্ব প্রতিবেদক :

প্রতিবন্ধীদের চাকরির সুযোগ দিতে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের মালিকদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘বেসরকারি যে ব্যবসা-প্রতিষ্ঠানগুলো আছে তাদের আমি অনুরোধ করবো, তারা তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে যদি প্রতিবন্ধীদের চাকরির ব্যবস্থা করে দেন তাহলে তাদের জন্যও অনেক সুবিধা হবে।’

রোববার রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবসের এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘প্রতিবন্ধীরা কাজ করতে পারে। সরকারি খাতে প্রতিবন্ধীদের জন্য একটা কোটা রাখা আছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান করে গিয়েছিলেন। আমরা এসে সেটা আবার চালু করেছি।’

তিনি বলেন, ‘অটিজমে যারা ভুগছে, তাদের ভেতরের মেধাটা বিকাশের সুযোগ আমাদের করে দিতে হবে।’ প্রতিবন্ধীবান্ধব প্রযুক্তি তৈরির আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘প্রতিবন্ধীবান্ধব সফটওয়্যার, অডিও-ভিডিও শিক্ষা উপকরণ, প্রযুক্তি উদ্ভাবনসহ তথ্যকেন্দ্র স্থাপনের জন্য আমি আমাদের সরকারি-বেসরকারি উদ্যোক্তা যারা আছেন তাদের আহ্বান করবো, তারাও যেন সহযোগিতায় এগিয়ে আসেন। আমি মনে করি, যে সফটওয়্যারগুলো তৈরি করা হচ্ছে প্রতিবন্ধীরাও যেন সে সফটওয়্যার ব্যবহার করতে পারে, ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারে। কম্পিউটার ব্যবহার করতে পারে, সেই প্রশিক্ষণ দেয়ার ব্যবস্থা আমরা ইতোমধ্যে নিয়েছি।’

তিনি বলেন, ‘আইনস্টাইন, ডারউইন, নিউটন তারা অটিজমে ভুগতেন। তারা মেধা বিকাশের সুযোগ পেয়েছিলেন। আজকে বিশ্বে তারা কত বড় উপকার করে দিয়েছেন।’

সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘জাতীয় প্রতিবন্ধী ক্রীড়া কমপ্লেক্স নির্মাণ করে দিচ্ছি। সেখানে এই প্রতিবন্ধীদের ক্রীড়া, শিক্ষা, প্রশিক্ষণের যেন সুযোগ হয়। সাভারে ইতোমধ্যে ১২ একর জায়গা দেয়া হয়েছে। ৩১৭ কোটি টাকা ব্যয়ে এটা নির্মাণ করা হচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘এদের (প্রতিবন্ধীদের) সুপ্ত মেধা বিকাশের সুযোগ করে দিতে হবে। সব সময় মনোবল রাখতে হবে, বিশেষ করে অভিভাবকদের। ভবিষ্যতের জন্য এমন কিছু করে যাব যাতে কষ্ট পেতে না হয়।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে কোথায় কোথায় প্রতিবন্ধী শিশুরা আছে তাদের শনাক্ত করার জন্য ৩২টি থেরাপি ভ্যান সমগ্র বাংলাদেশ ঘুরবে। ভ্যানের মধ্যেই সব ব্যবস্থা আছে। সেখানেই পরীক্ষা করা হবে কারা প্রতিবন্ধকতায় ভুগছে, কোন ধরনের প্রতিবন্ধকতায় ভুগছে। সেটা শনাক্ত করার জন্য এই মোবাইল থেরাপি ভ্যান আমরা চালু করে দিয়েছি।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বিনামূল্যে থেরাপি প্রদানের জন্যে বাংলাদেশের সব জেলায় ওয়ানস্টপ সার্ভিস সেন্টার স্থাপন করা হয়েছে। জেলা উপজেলা পর্যন্ত ডাক্তারদের অটিজমবিষয়ক প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। অস্বচ্ছল প্রতিবন্ধীদের ভাতা দিচ্ছি।’

সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি ড. মো. মোজাম্মেল হোসেন।

মুক্তা // এসএমএইচ // এপ্রিল ২, ২০১৭

x

Check Also

আরো আট নারী ও শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ

সাভারের আশুলিয়ায় বন্ধুদের সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে স্থানীয় একটি কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা দুই ...