বিদেশে অবস্থানরত বাংলাদেশি শ্রমিকদের বাংলাদেশের ব্যাংকগুলো থেকে আগের চেয়ে বেশি হারে গৃহঋণ পাওয়ার সুযোগ দিল কেন্দ্রীয় ব্যাংক। আগে প্রবাসী শ্রমিকরা বাংলাদেশের কোনো ব্যাংক থেকে গৃহঋণ নিতে পারত মোট খরচের অর্ধেক। বাকি অর্ধেক গ্রাহককেই জোগাড় করতে হতো। এখন থেকে প্রবাসী শ্রমিকরা ৭৫:২৫ ঋণ-মার্জিন অনুপাতে গৃহঋণ পাবে। অর্থাৎ গৃহনির্মাণ বা ফ্ল্যাট কেনায় মোট ব্যয়ের ৭৫ শতাংশ ঋণ হিসেবে পাওয়া যাবে ব্যাংক থেকে।

গতকাল রবিবার বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রানীতি বিভাগ থেকে এসংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করে অথরাইজড ডিলার ব্যাংকগুলোকে পাঠানো হয়। এতে বলা হয়, ২০১৫ সালের ৬ ডিসেম্বর দেশের ব্যাংকগুলোকে অনিবাসী বাংলাদেশিদের গৃহঋণের ঋণ-মার্জিন অনুপাত নির্ধারণ করা হয়েছিল ৫০:৫০। বর্তমানে প্রবাসী শ্রমিকদের আবাসন অর্থায়ন সুবিধা বাড়ানোর লক্ষ্যে গৃহঋণের ঋণ-মার্জিন অনুপাত ৭৫:২৫ করা হলো।

গত বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্ট (বিআইবিএম) আয়োজিত ‘ব্যাংকের গৃহঋণ; ধারা ও প্রভাব’ শীর্ষক এক গোলটেবিল বৈঠকে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের কান্ট্রি হেড আবরার আনোয়ার প্রবাসীদের গৃহঋণ দেওয়ার ক্ষেত্রে ঋণ-মার্জিন অনুপাত ৫০:৫০ থেকে বাড়িয়ে দেশের অন্যান্য নাগরিকের মতো করার প্রস্তাব করেছিলেন। বৈঠকে অংশগ্রহণকারীদের অনেকেই ওই প্রস্তাবে সমর্থন জানান।
কাওছার আক্তার মুক্তা // এসএমএইচ// ২৪ জুলাই ২০১৭