জেইগার্নিক ইফেক্ট এর আবিষ্কারক হলেন ব্লুমো জেইগার্নিক, লিথুনিয়ায় জন্মগ্রহণকারী একজন মনোবিজ্ঞানী। তিনিই সর্বপ্রথম ১৯২০ সালে তাঁর ডক্টরেট থিসিসে এই জেইগার্নিক ইফেক্ট এর ব্যাখ্যা দেন। ব্লুমো এই বিষয়টি সম্পর্কে ধারণা পান যখন তিনি একটি রেস্টুরেন্টে দেখেন যে, একজন ওয়েটার যে টেবিলের বিল পরিশোধ হয়ে গেছে তার থেকে যে টেবিলে বিল পরিশোধ হয় নাই তার অর্ডারের কথা বেশি মনে রাখতে পারছেন। তিনি খেয়াল করেন যে, বিল পরিশোধ হওয়া টেবিলের অর্ডারের কথা তার স্মরণে একেবারেই থাকছে না। কিন্তু যে টেবিলের বিল এখনও দেওয়া হয়নি তার অর্ডারের কথা পুরোপুরি স্মরণে থাকছে। আবার যখনই ঐ টেবিলের বিল পরিশোধ হয়ে যাচ্ছে, মুহূর্তের মধ্যে সে টেবিলের অর্ডারের কথাও তিনি ভুলে যাচ্ছেন। অর্থাৎ ওয়েটারটি শেষ হয়ে যাওয়া কাজের চেয়ে অসমাপ্ত কাজগুলো বেশি মনে রাখতে পারছে। এর কারণ হিসেবে ব্লুমো তার থিসিসে ব্যাখ্যা করেন যে, আমাদের অবচেতন মন সবসময় খেয়াল রাখে যে কোন কাজটা শেষ হয়ে গেছে আর কোন কাজটা এখনও শেষ হয় নাই। অবচেতন মন শেষ হয়ে যাওয়া কাজগুলোকে মুছে ফেলে নতুন কাজগুলোকে সংযুক্ত করতে থাকে।

এই বিষয়টিকে যদি আমরা আমাদের পড়াশোনার পদ্ধতির সাথে মেলাই তাহলে দেখা যায় যে, আমরা এমন অনেকেই আছি যারা কোনো পরীক্ষার জন্য খুব করে মনোযোগ দিয়ে পড়ছি, সেটা পরীক্ষা হল পর্যন্ত হয়ত কিছুটা মনে রাখতে পারছি কিন্তু পরীক্ষা শেষ হওয়ার সাথে সাথে তা আমাদের মস্তিষ্ক থেকে বিলীন হয়ে যাচ্ছে। পরীক্ষার দুদিন পরে সেই পড়াগুলোকে আর কোনোভাবেই মনে করতে পারছি না।