নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ের সোনাখালিতে ৪০ একর জায়গা জুড়ে চালু হয়েছে র‍্যাংগস গ্রুপের পরিবহন সংযোজন প্লান্ট। শুক্রবার আনুষ্ঠানিকভাবে প্লান্টটির উদ্বোধন করেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। কমপ্লিট নক ডাউন (সিকেডি’র) এই প্লান্টে প্রাথমিকভাবে ভারতীয় বহুজাতিক গাড়ি উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান মাহিন্দ্রা এন্ড মাহিন্দ্রা লিমিটেডের পিকআপ ভ্যান ও হিউম্যান হলার সংযোজন করা হবে।

অনুষ্ঠানে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বাংলাদেশে সড়ক দুর্ঘটনা এখন দুর্ভাবনার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। দেশের সিটিং সার্ভিসের নামে চলছে চিটিং সার্ভিস। মনে হয় দেখার কেউ নেই। ইকোনোমিক ইন্টেলিজেন্সের বার্ষিক রিপোর্টে বলা হয়েছে ১৪০টি দেশের রাজধানীর মধ্যে ঢাকার অবস্থান ১৩৭ তম। যা যুদ্ধ বিধ্বস্ত লিবিয়া, ঘানা, নাইজেরিয়ার রাজধানীর চেয়েও খারাপ। এ দুর্নামের অন্যতম কারণ হলো ফিটনেসবিহীন গাড়ি।’

র‍্যাংগস গ্রুপের গাড়ি সংযোজন প্লান্টের কথা সংযোজন করে তিনি বলেন, ‘ব্যবসায়ীদের নতুন নতুন বিনিয়োগের কারণে অর্থনীতি এগিয়ে যাচ্ছে। একটি বিনিয়োগের কারণে দেশে নতুন কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হচ্ছে।’

র‍্যাংগস মটরসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মিস সোহানা রউফ চৌধুরী বলেন, ‘সংযোজন প্লান্টটি আনুষ্ঠানিকভাবে চালু করতে পেরে আমরা আনন্দিত। দেশের অর্থনীতিতে অবদান রাখে এমন সকল উদ্যোগে আমরা সব সময়ই প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। এই প্রক্রিয়ার ধারাবাহিকতায়, নতুন এই প্লান্ট দেশের ক্রমবর্ধমান পরিবহনের চাহিদা মেটাবে এবং একই সাথে শক্তিশালী হবে দেশের অর্থনীতি। এই প্লান্ট ৫০০ শতাধিক লোকের চাকরির সুযোগ তৈরি করবে। অন্যান্য কোম্পানির তুলনায় সাশ্রয়ী মূল্যে গুণগত মানের পরিবহন কেনার সুবিধার পাশাপাশি দ্রুত ও কার্যকর সেবা পাবেন গ্রাহকরা।’

তিনি আরো বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে নতুন এই প্লান্ট থেকে মাহিন্দ্রা এন্ড মাহিন্দ্রা লিমিটেডের পিকআপ ভ্যান ও হিউম্যান হলার সংযোজন করলেও ধীরে ধীরে অন্যান্য ব্র্যান্ডের গাড়িও সংযোজন করা হবে। আমদানি খরচ কমায় গ্রাহকরা ১০ থেকে ১৫ ভাগ কম দামে পিকআপ ভ্যান ও হিউম্যান হলার কিনতে পারবেন। এছাড়াও সুপরিসর প্লান্ট ও ফ্রেবিকেশনের জন্য পৃথক স্থানের সুবিধা থাকায় সংযোজন প্রক্রিয়ায় আমাদের কোনো অতিরিক্ত সহায়তার প্রয়োজন হবে না। একই সাথে আমাদের দক্ষ ও মেধাবী কর্মীরা অন্য কোম্পানির তুলনায় গ্রাহকদের দ্রুত সেবা দিতে সক্ষম হবে।’

মাহিন্দ্রা এন্ড মাহিন্দ্রা লিমিটেডের চিফ অফ ইন্টারন্যাশনাল অপারেশনস অরবিন্দ ম্যাথিউ বলেন, ‘বাংলাদেশে র‍্যাংগস মটরস লিমিটেডের সাথে মাহিন্দ্রার ইউনিট চালুর আজকের এই মুহূর্ত অবশ্যই গর্ব করার মত। বাংলাদেশে এই সংযোজনী প্লান্টের প্রতিষ্ঠা বিল্ট ইন বাংলাদেশ পণ্যের প্রতি আমাদের প্রতিশ্রুতির একটি নিদর্শন। আধুনিক প্রযুক্তি সম্পন্ন সুপরিসর ও পরিবেশ বান্ধব এই প্লান্ট কেবল উৎপাদন প্রক্রিয়াকেই তরান্বিত করবে না বরং দেশিয় কর্মসংস্থানের সুযোগও তৈরি করবে।’

র‍্যাংগস মটরসের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা দিলীপ ব্যানার্জী বলেন, ‘আধুনিক সকল সুযোগ সুবিধা ও সর্বাধিক এজ প্রযুক্তির নিয়ে চালু হচ্ছে আমাদের এই সিকেডি’র প্লান্ট। বছরে ২ হাজারের বেশি গাড়ি উৎপাদন সক্ষমতা রয়েছে প্লান্টের। ক্রমবর্ধমান গাড়ির চাহিদা বিবেচনায় আমাদের কর্ম পরিধি বৃদ্ধির এটাই উপযুক্ত সময়। গত কয়েক দশকে মার্সিডিজ বেঞ্জ, মিতশুবিশি, আইজার, সুজুকির মত বিশ্বের নামাদামী ব্র্যান্ডের গাড়ি বাজারে এনেছে র‍্যাংগস। টেলিকমিউনিকেশন, অটোমোবাইল কিংবা বৈদ্যুতিক যেকোনো জিনিসের এখন নির্ভরযোগ্য নাম হচ্ছে র‍্যাংগস পণ্য।’

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন র‍্যাংগস মটরসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সোহানা রউফ চৌধুরী, বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাই কমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলা, মাহিন্দ্রা এন্ড মাহিন্দ্রা লিমিটেডের চিফ অফ ইন্টারন্যাশনাল অপারেশনস অরবিন্দ ম্যাথিউ, র‍্যাংগস মটরসের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা দিলীপ ব্যানার্জীসহ দুই কোম্পানির অন্যান্য শীর্ষ কর্মকর্তারা।