Home / টপ নিউজ / বৈশাখের দিনে দুপুরের ভাতের সাথে মাছের ভর্তা-ভাজি

বৈশাখের দিনে দুপুরের ভাতের সাথে মাছের ভর্তা-ভাজি

লাইফস্টাইল ডেস্ক :

বেশির ভাগ সময়ই মাছ ভাজি কিংবা ঝোলেই খাওয়া হয় । সময়ের অভাবে খুব একটা ভর্তা খাওয়া হয়ে উঠে না। আবার এমন অনেক পরিবারই আছেন যারা দুপুরের খাবারে শুধু ভর্তাই রাখেন। আমরা আমাদের মুখের রুচি বা স্বাদকে পরিবর্তন করতে বিভিন্ন রকমের মাছ ভর্তা ও ভাজি তৈরি করতে পারি বৈশাখের দিন। শুধু যে ইলিশ মাছই খেতে হবে তা না, এছাড়াও নানান রকমের মজার মজার মাছ আছে যা অনায়াসেই খাওয়া যেতে পারে।

টাকি মাছ ভর্তা

২৫০ গ্রাম টাকি মাছ, ২০০ গ্রাম পেঁয়াজ, ১৫-২০ টি কাঁচামরিচ, রসুন ২ ফালি ,আদা কুচি আধা টেবল চামচ (আদা ও রসুন চাইলে নাও দিতে পারেন)।

প্রস্তুত প্রণালী: হালকা তেলে মাছগুলো কড়াইয়ে ভাজুন। বাদামী কালার হয়ে আসলে নামিয়ে ফেলুন। ঐ কড়াইয়ে পেঁয়াজ, রসুন, কাঁচামরিচ এক সাথে ভাজুন। ভালভাবে সিদ্ধ হলে নামিয়ে ফেলুন। এখন মাছগুলো থেকে মাঝের কাঁটাটি সরিয়ে ফেলুন। তারপর সবকিছু একসাথে মেখে ফেলুন। পরিমানমত লবন দিয়ে আবার মাখুন। এখন সবকিছু ঐ কড়াইয়ে হালকা তেল দিয়ে হালকা করে ভাজুন। কেউ ধনিয়া পাতা পছন্দ করলে কিছু ধনিয়া পাতা দিয়েও ভাজতে পারেন অথবা লেবু পাতা দিতে পারেন।

চ্যাপা শুঁটকি ভর্তা

চ্যাপা শুঁটকি বড় সাইজের ২টি, পেঁয়াজ ২টি, রসুন ১টি, কাঁচামরিচ ১০-১২ টি।

প্রস্তুত প্রণালী: অল্প একটু চুন দিয়ে ভাল ভাবে চ্যাপা দুইটি ধুয়ে নিন। পেঁয়াজ দুইটি একটু বড় বড় করে কুচি কুচি করে কাটুন। রসুনের খোসা ছাড়িয়ে এক একটি রসুনের ফালিকে লম্বাভাবে চার টুকরো করুন। এখন কড়াইয়ে চার ফোঁটা তেল দিয়ে চ্যাপা দুইটি হালকা ভাবে ভাজুন। ঐ কড়াইয়ে পেঁয়াজ, রসুন, কাচামরিচ এক সাথে ভাজুন। ভালভাবে সিদ্ধ হলে নামিয়ে ফেলুন। সবকিছু একসাথে পাটায় বেটে ফেলুন। শেষে পরিমান মত লবণ দিয়ে মাখিয়ে পরিবেশন করুন।

চ্যাপা শুঁটকি ঝাল ভর্তা

চ্যাপা শুঁটকি বড় সাইজের ২টি, পেঁয়াজ ২টি, রসুন ১টি, কাঁচামরিচ ৪-৫ টি, লাল মরিচ ৫-৬টি ( না থাকলে মরিচের গুঁড়া আন্দাজমতো)।

প্রস্তুত প্রণালী: অল্প একটু চুন দিয়ে ভাল ভাবে চ্যাপা দুইটি ধুয়ে নিন। পেঁয়াজ দুইটি একটু বড় বড় করে কুচি কুচি করে কাটুন। রসুনের খোসা ছাড়িয়ে এক একটি রসুনের ফালিকে লম্বাভাবে চার টুকরো করুন। এখন কড়াইয়ে চার ফোঁটা তেল দিয়ে চ্যাপা দুইটি হালকা ভাবে ভাজুন। ঐ কড়াইয়ে পেঁয়াজ, রসুন, কাচামরিচ, লাল মরিচ এক সাথে ভাজুন। ভালভাবে সিদ্ধ হলে নামিয়ে ফেলুন। সবকিছু একসাথে পাটায় বেটে ফেলুন। শেষে পরিমান মত লবণ দিয়ে মাখিয়ে পরিবেশন করুন।

কচুপাতায় চ্যাপা ভর্তা

হাতের তালু আকারের কচু পাতা ৪ থেকে ৫টি, চ্যাপা শুঁটকি বড় সাইজের ২টি, পেঁয়াজ ২টি, রসুন ১টি, কাঁচামরিচ ১০-১২ টি।

প্রস্তুত প্রণালী: কচুপাতা ভালো করে ধুয়ে সেদ্ধ করে পানি ঝরিয়ে রাখুন। অল্প একটু চুন দিয়ে ভাল ভাবে চ্যাপা দুইটি ধুয়ে নিন। পেঁয়াজ একটু বড় বড় করে কুচি কুচি করে কাটুন। রসুনের খোসা ছাড়িয়ে এক একটি রসুনের ফালিকে লম্বাভাবে চার টুকরো করুন। এখন কড়াইয়ে চার ফোঁটা তেল দিয়ে চ্যাপা দুইটি হালকা ভাবে ভাজুন। ঐ কড়াইয়ে পেঁয়াজ, রসুন, কাচামরিচ এক সাথে ভাজুন। ভালভাবে সিদ্ধ হলে কচুপাতা দিয়ে কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করে নামিয়ে ফেলুন। সবকিছু একসাথে পাটায় বেটে ফেলুন। শেষে পরিমান মত লবণ দিয়ে মাখিয়ে পরিবেশন করুন।

ছুরি শুঁটকি ভর্তা

উপকরণ: ছুরি শুঁটকি ছোট করে কাটা আধা কাপ, পেঁয়াজ কুঁচি ২ কাপ, শুকনা মরিচের গুঁড়া ২ টেবিল চামচ, লবণ পরিমাণমতো, চিনি আধা চা চামচ, লেবুর রস ১ চা চামচ, তেল আধা কাপ, আদা বাটা আধা চা চামচ, রসুন বাটা ১ চা চামচ, ধনে গুঁড়া ১ চা চামচ, হলুদ গুঁড়া ১ চা চামচ, তেজপাতা ১টি, কাঁচামরিচ চার টুকরা করে কাটা ৬টি।

প্রণালী: শুঁটকি ভালো করে ধুয়ে সিদ্ধ করে বেটে নিতে হবে। তেল গরম করে আদা-রসুন দিয়ে ভালো করে ভেজে শুঁটকি দিয়ে ভাজতে হবে। হলুদ, ধনে, মরিচের গুঁড়া, তেজপাতা, লবণ দিয়ে মাঝারি আঁচে ৮-১০ মিনিট রেখে পেঁয়াজ দিয়ে ভাজতে হবে। পেঁয়াজ নরম হয়ে এলে চিনি, লেবুর রস, কাঁচামরিচ দিয়ে কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করে নামাতে হবে।

চিংড়ি ভর্তা

মাঝারি আকারে চিংড়ি ( মাথা ও খোলা বাদ দিয়ে ) ১ কাপ, পেয়াঁজ মোটা করে কুচি করা আধা কাপ, কাঁচামরিচ ৭-৮টা, লবণ পরিমাণ মতো, সরিষার তৈল ৩ টেবিল চামচ, রসুন ২-৩ কোয়া, হলুদ গুঁড়া সামান্য, গরম ভাত আধা কাপ।

প্রস্তত প্রনালীঃ চিংড়ি, সামান্য লবণ, সামান্য হলুদ গুড়া, রসুন, কাঁচামরিচ, ১ চা চামচ সরিষার তেল ও অল্প পানি দিয়ে সিদ্ধ করতে হবে । পানি শুকিয়ে গেলে গরম অবস্থায় চটকে নিতে হবে । ভাতও চটকে নিতে হবে । এবার পেঁয়াজ, কাঁচামরিচ, সরিষার তেল ও লবণ দিয়ে মেখে ভর্তা করতে হবে।

কাঁচকি মাছ ভর্তা

উপকরণ:

কাঁচকি মাছ এক কাপ, পেঁয়াজ কুচি ১ টেবিল চামচ, রসুন কুচি ২ চা চামচ, কাঁচামরিচ ৪টি, ধনেপাতা কুচি ১ টেবিল চামচ, লবণ পরিমাণমতো।

প্রণালী: কাঁচকি মাছ ভালো করে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে রাখুন।মাছ, পেঁয়াজ কুচি, রসুন কুচি, কাঁচামরিচ অল্প তেলে কড়াইতে হালকাভাবে ভাজুন। ভাজা হলে লবণ ও ধনেপাতা দিয়ে পাটায় বেটে ভর্তা তৈরি করুন।

পুঁটি মাছ ভাজা

উপকর: দেশী পুটি মাছ ১০-১২ টি, আদা বাটা কোয়ার্টার চা চামচ, রসুন বাটা কোয়ার্টার চা চামচ, ধণে গুঁড়া কোয়ার্টার চা চামচ, জিরা গুঁড়া কোয়ার্টার চা চামচ, হলুদ গুঁড়া কোয়ার্টার চা চামচ, মরিচ গুঁড়া কোয়ার্টার চা চামচ, লবণ স্বাদ মতো, সয়াবিন তেল আধা কাপ।

পুঁটি মাছ ভাজার প্রণালী: মাছ গুলো কেটে নিয়ে ভাল করে ধুয়ে নিন। একটি গামলার মধ্যে মাছের সাথে তেল বাদে সব উপকরণ নিয়ে ভালভাবে মিশিয়ে নিন। ফ্রাইপ্যানে তেল দিন। তেল গরম হলে মাছ গুলো একটা একটা করে দিন । উলটে পালটে মাঝারী আঁচে ভাজুন। লাল লাল করে ভেজে তুলুন। এবার পরিবেশন করুন।

কই মাছ ভাজা

উপকরণ: কই মাছ ৪টি, সরিষার তেল ৫-৬ চা-চামচ, পেঁয়াজবাটা ১ টেবিল চামচ, রসুন ও কাঁচা মরিচ (বেটে নেওয়া) ১ চা-চামচ, জিরা বাটা আধা চা-চামচ, হলুদগুঁড়া ১ চা-চামচ, মরিচগুঁড়া ১ চা-চামচ, লবণ স্বাদমতো, ধনেপাতা কুচি ১ টেবিল চামচ, লেবুর রস ১ টেবিল চামচ, কাঁচা মরিচ ফালি ২-৩টি।

প্রণালি : প্রথমে মাছ কেটে ভালো করে পানি ঝরাতে হবে। তারপর লেবুর রস, লবণ, সামান্য হলুদ ও মরিচগুঁড়া এবং ১ টেবিল চামচ সরিষার তেল দিয়ে মাখিয়ে ১০ মিনিট মেরিনেট করে রাখতে হবে। ফ্রাইপ্যানে তেল দিয়ে তাতে কই মাছগুলো ভেজে নিন। এবার বাকি তেল ও মসলা দিয়ে ভুনে ১ কাপ পানি দিয়ে তাতে ভাজা মাছগুলো দিতে হবে। কিছুক্ষণ পর একবার মাছ উল্টে দিয়ে ধনে পাতা ও কাঁচা মরিচ ফালি দিতে হবে। তেল ওপরে উঠে এলে নামিয়ে পরিবেশন করুন মজাদার তেল কই।

রুই মাছ ভাজা

বড় রুই মাছ ৮ টুকরো, আদা বাটা আধা চা-চামচ, কাঁচামরিচ বাটা আধা চা-চামচ, হলুদ গুঁড়া আধা চা-চামচ, পেঁয়াজ বাটা এক টেবিল চামচ, লবণ স্বাদমতো, লেবুর রস ১ টেবিল চামচ, তেল ১০০ মিলিলিটার।

যেভাবে করবেন: মাছের টুকরোগুলোকে তেল ছাড়া সব মশলা, লবণ ও লেবুর রস দিয়ে ১০-১৫ মিনিট মাখিয়ে রাখুন। ফ্রাইপ্যান অথবা কড়াই উনুনে দিয়ে ১০০ মিলিলিটার তেল ঢালুন। তেল গরম হলে দুটো করে মাছ ছেড়ে দিন। এক পিঠ ভাজা হলে উল্টে দিন। মাছ বাদামি রঙ হলে তেল ছেঁকে তুলে ফেলুন।পোলাও অথবা গরম ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন।

রূপচাঁদা মাছ ভাজা

উপকরণ: ২ টি আস্ত বড় রূপচাঁদা মাছ অথবা আপনার পছন্দমত কোনো মাছ, দেড় চা চামচ ভিনেগার, ১ চা চামচ রসুন বাটা, ১ চা চামচ আদা বাটা, আধা চা চামচ জিরা গুঁড়া, আধা চা চামচ ধনে গুঁড়া, ১ টেবিল চামচ মরিচ গুঁড়া (আরো বেশি দিতে পারেন) আধা চা চামচ হলুদ গুঁড়া স্বাদ মত লবণ, ভাজার জন্য তেল।

প্রনালী: আস্ত মাছগুলো ভালো করে পরিষ্কার করে দুই পাশে গভীর ভাবে চিড়ে নিতে হবে।এবার সব উপকরণ দিয়ে মাছ মাখিয়ে ৩০ মিনিট রাখতে হবে। ননস্টিক প্যান এ অল্প পরিমাণ তেল দিয়ে অল্প তাপে মাছ ভাজুন। মাছ ভাজা হতে ৩০ থেকে ৪০ মিনিট লাগবে। এতে একটু সময় বেশি লাগলেও উপরের দিকটা দারুন মুচমুচে হবে। গরম গরম পরিবেশন করুন পছন্দের ডিসের সাথে।

সাব্বির//এসএমএইচ // এপ্রিল০৯২০১৭

x

Check Also

আরো আট নারী ও শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ

সাভারের আশুলিয়ায় বন্ধুদের সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে স্থানীয় একটি কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা দুই ...