Home / আন্তর্জাতিক / ব্রেক্সিটের মতো নীবর ভোট বিপ্লবে জয়ের আশায় ট্রাম্প

ব্রেক্সিটের মতো নীবর ভোট বিপ্লবে জয়ের আশায় ট্রাম্প

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

হিলারি আর ট্রাম্পের মধ্যকার তৃতীয় এবং শেষ প্রেসিডেন্সিয়াল নির্বাচনী বিতর্ক নিয়ে উত্তপ্ত মার্কিন রাজনৈতিক অঙ্গন। বুধবার নেভাডার লাসভেগাস বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিতব্য বিতর্কের আগে সর্বশেষ জরিপেও এগিয়ে রয়েছেন হিলারি ক্লিনটন। আর সবদিক থেকে পিছিয়ে থাকার পরও বেক্সিটের মতো নীরব ভোট বিপ্লবে জয়ের আশায় ডোনাল্ড ট্রাম্প।

এনবিসি আর সিএনএন জরিপে দেশ্যব্যাপী ৯ থেকে ১১ শতাংশ ভোট ব্যবধানে এগিয়ে আছেন হিলারি। এমন সংবাদের মধ্যে রিপাবলিকান সমর্থক প্রচারমাধ্যম ফক্স নিউজের জরিপেও সেই সত্যতা মিলেছে। সর্বশেষ ফক্স জরিপে হিলারি এগিয়ে আছেন ৭ শতাংশ ভোটে। আর শেষ বিতর্কটি পরিচালনা করবেন ফক্স নিউজের সিনিয়র সাংবাদিক ক্রিস ওয়ালেস। তাই কয়েকদিন প্রচার প্রচারণা বাদ দিয়ে বিতর্ক প্রস্তুতি নিয়েছেন হিলারি ক্লিনটন।

অন্যদিকে ডোনাল্ড ট্রাম্প যথারীতি পাতানো নির্বাচনের অভিযোগ তুলে আর প্রশাসনিক সংস্কারের নানা দাবি তুলে মাঠ গরম রেখেছেন। তবে এ যাত্রায় তার লাভ হচ্ছে কম।

ম্যমথ বিশ্ববিদ্যালয়ের জরিপে ১২ পয়েন্ট ভোট ব্যবধানে এগিয়ে রাখা হয়েছে হিলারি ক্লিনটককে। হিলারি ৫০ শতাংশ ভোট আর ডোনাল্ড ট্রাম্প ৩৮ শতাংশ ভোট। ভাসমান ভোট রাজ্যের মধ্যে শুধুমাত্র ওহাইয়োতে হিলারির চেয়ে ৪ শতাংশ ভোটে এগিয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্প। কিন্তু অন্য সব ব্যাটেলগ্রাউন্ড রাজ্যর সবগুলোতে এগিয়ে আছেন হিলারি ক্লিনটন। ইলেক্ট্ররাল কলেজ ম্যাপ অনুযায়ী, এমনিতেই এগিয়ে থাকা হিলারি মাত্র ২টি রাজ্য পেনসিলভেনিয়া আর ভার্জিনিয়াতে জয় পেলেই চলে যাবেন হোয়াইট হাউসে। সেখানে ফ্লোরিডা, নেভাডা, এ্যারিজোনা, উইসকনসিন, নর্থ ক্যারোলাইনা, পেনসিলভেনিয়াতে নিশ্চিত জয় তুলে নেওয়ার আভাস দেওয়া হয়েছে এই জরিপে।

তবে দ্বিতীয় নির্বাচনী বিতর্কের আগে ট্যাক্স ফাঁকি দেওয়া আর নারী সম্পর্কে একাধিক অবমাননাকর বক্তব্য প্রকাশিত হওয়ায় যে কোণঠাসা অবস্থায় ছিলেন সেই বিতর্কের মোড় ঘুরিয়ে দিতে উঠে পড়ে লেগেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। উইসকনসিনের এক জনসভায় ট্রাম্প দাবি করেছেন, এদেশে ১০ বছর আগে মরা মানুষ ভোট দিতে পারে, অবৈধ অভিবাসীরা ভোট দিতে পারছে। অবশ্যই ভোটকেন্দ্রে কারচুপির সম্ভাবনা জোরালো।

পেসসিলভেনিয়া, ওহাইয়ো, শিকাগো, সেন্ট লুইসসহ বিভিন্ন জায়গায় বড় ধরনের ভোট কেলেঙ্কারি ঘটতে যাচ্ছে বলে ভোটারদের সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। এসময় গণমাধ্যমকে হিলারির চেয়েও বেশি উন্মাদ বলে ব্যঙ্গ করে ডোনাল্ড ট্রাম্প জানান, তারা যেসব জরিপ দেখাচ্ছে সেগুলো সব মিথ্যা। ইংল্যান্ডের ব্রেক্সিট ভোটের মতো এখানে বিপ্লব হবে বলে তার কর্মী সমর্থকদের আশ্বস্ত করে ট্রাম্প বলেছেন, নইলে এত জনমানুষ আসত না আমার জনসভায়।

‘জরিপ দেখাচ্ছে সর্বকালের রিপাবলিকান রাজ্য এই কলোরাডোতেও নাকি হিলারি আর আমি সমান সমান। কি অবাক কাণ্ড। ওরা কি এই জনসভার উপস্থিতি দেখে বলছে এসব অসত্য কথা? আমি বলে রাখি, ভোটে নীরব বিপ্লব হবে। ইংল্যান্ডের ব্রেক্সিট ভোটের আগে কোনো জরিপ বলেনি ব্রেক্সিট জয়ী হবে। আমি বলে রাখছি, যুক্তরাষ্ট্রে ব্রেক্সিট ভোটের মতোই ফলাফল আসবে’- এই কথা বলার সময় ট্রাম্পকে বেশ আত্মবিশ্বাসী মনে হয়েছে জনসভায়।

কলোরাডোতে এই নির্বাচনী সভায় ট্রাম্প বলেন,  কিছু রিপাবলিকান পন্ডিত না বুঝেই বলছেন পাতানো নির্বাচনের অভিযোগ সত্য নয়। এই একইদিন, রিপাবলিকান সিনেটর মার্ক রুবিও বলেছেন, অবশ্যই যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচন পাতানো হয়না এবং ডোনাল্ড ট্রাম্পের উচিৎ এই অভিযোগ বন্ধ করা। ফ্লোরিডার সিনেটর হিসেবে পুনরায় নির্বাচিত হতে যুদ্ধ করছেন মার্ক রুবিও। সিনেট নির্বাচন সংক্রান্ত একটি বিতর্কে অংশ নিয়ে রুবিও বলেন, ফ্লোরিডার কথাই বলতে পারি আমি যে, এখানে ৬৭টি ভোট অঞ্চল আছে। আমি পরাজিত হলে বলতে পারিনা যে তারা সবাই আমার বিরুদ্ধে কাজ করেছে।

আরডি/ ১৯ অক্টোবর ২০১৬

x

Check Also

আরো আট নারী ও শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ

সাভারের আশুলিয়ায় বন্ধুদের সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে স্থানীয় একটি কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা দুই ...