Home / আন্তর্জাতিক / লাওস ইতিহাসের সেরা বোমা হামলার শিকার

লাওস ইতিহাসের সেরা বোমা হামলার শিকার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

ভিয়েতনাম যুদ্ধ চলাকালে লাওসে বৃষ্টির মতো  বোমা নিক্ষেপ করেছিল যুক্তরাষ্ট্র। এ হামলাকে ইতিহাসে সেরা বোমা হামলা ঘটনা বলে স্বীকার করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম প্রেসিডেন্ট হিসেবে দেশটির রাজধানী ভিয়েনতিয়েনে গিয়ে লাওসকে ইতিহাসের সবচেয়ে ব্যাপক বোমা হামলার শিকার দেশ বলে দুঃখ প্রকাশ তিনি।

১৯৬৪ থেকে ১৯৭৩ সাল পর্যন্ত লাওসে গড়ে প্রতি মিনিটে আটটি করে প্রায় ২৮ কোটি ৮০ লাখ ক্লাস্টার বোমা বর্ষণ করে যুক্তরাষ্ট্র। পুরো দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে ব্যবহার করা মোট বোমার চেয়েও এ সংখ্যা অনেক বেশি।
লাওসের এক বাসিন্দার বর্ণনানুযায়ী ‘বৃষ্টির মতো বোমাবর্ষণ’ করা হয়েছিল। লাওসের ভিতর দিয়ে উত্তর ভিয়েতনামের কমিউনিস্ট বাহিনীকে দক্ষিণ ভিয়েতনামে প্রবেশে বাধা দিতে গোপনে এই ব্যাপক বোমাবর্ষণ করা হয়েছিল।
ওই সময়ে যুক্তরাষ্ট্র লাওসে পাঁচ লাখ আশি হাজার ৩৪৪টি বোমাহামলা মিশন পরিচালনা করেছিল। বর্ষণ করা বোমাগুলোর অধিকাংশই ক্লাস্টার বোমা ছিল। এগুলোর ৩০ শতাংশ এখনও অবিস্ফোরিত অবস্থায় থেকে যাওয়ায় নিরীহ মানুষের জীবনহানির কারণ হচ্ছে।
লাওসের ১৮টি প্রদেশের মধ্যে ১০টিকে অবিস্ফোরিত বোমার কারণে ‘মারাত্মক দূষিত’ বলে বর্ণনা করা হচ্ছে। লাওসের এই ‘ক্ষত’ সারিয়ে তোলার ক্ষেত্রে সাহায্যে যুক্তরাষ্ট্রের একটি ‘নৈতিক বাধ্যবাধকতা’ আছে মনে করেন বলে জানিয়েছেন ওবামা।
আগামী তিন বছরে ক্লাস্টার বোমা ও অন্যান্য অবিস্ফোরিত বোমা উদ্ধার করে সরিয়ে নিতে প্রায় নয় কোটি ডলার ব্যয় করা হবে। এসব বোমা নিষ্ক্রিয় করার কাজে গেল ২০ বছরে আরো ১০ কোটি ডলার ব্যয় করা হয়েছে।
মাইন ক্লিয়ারিং এজেন্সিগুলোর হিসাব অনুযায়ী, ২৮ কোটি ৮০ লাখ বোমার মধ্যে যুদ্ধ শেষ হওয়ার পর লাওসজুড়ে সাত কোটি ৫০ লাখ বোমা অবিস্ফোরিত অবস্থায় এখানে সেখানে ছড়িয়ে আছে।
খেলনার মতো দেখতে ক্লাস্টার বোমাগুলো বিশেষভাবে শিশুদের জন্য অত্যন্ত বিপজ্জনক বলে বিবেচনা করা হয়। ওবামার ঘোষণাকে মাইন ক্লিয়ারিং এজেন্সিগুলো ব্যাপকভাবে স্বাগত জানিয়েছে।

 আরডি/ ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৬

x

Check Also

আরো আট নারী ও শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ

সাভারের আশুলিয়ায় বন্ধুদের সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে স্থানীয় একটি কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা দুই ...