Home / অর্থ-বাণিজ্য / সাম্পান শোভাযাত্রায় কর্ণফুলী রক্ষার দাবি

সাম্পান শোভাযাত্রায় কর্ণফুলী রক্ষার দাবি

চট্টগ্রাম, ৯ মে (অনলাইনবার্তা): কর্ণফুলীর বুকে চট্টগ্রাম আঞ্চলিক সাংস্কৃতিক একাডেমি আয়োজিত সাম্পান শোভাযাত্রায় দখল দূষণের হাত থেকে কর্ণফুলীকে রক্ষার জোর দাবি জানিয়েছেন বক্তারা।

সোমবার সকাল ১১টায় নগরীর অভয়মিত্রঘাট থেকে ঢোল বাজনার মাধ্যমে শোভাযাত্রা শুরু হয়।  ডায়মন্ড সিমেন্ট সাম্পান খেলা ও চাঁটগাইয়া সংস্কৃতি মেলা ১৪২৩ বাংলার প্রথমদিনে এ সাম্পান শোভাযাত্রার উদ্বোধন করেন ডায়মন্ড সিমেন্ট পরিচালক লায়ন হাকিম আলী।

দেড়ঘন্টা ব্যাপী শোভাযাত্রাটি কর্ণফুলীর বিভিন্ন ঘাট ঘুরে বন্দর মোহনা হয়ে সদরঘাটে এসে শেষ হয়।

এসময় আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, বন্দর কর্তৃপক্ষ চট্টগ্রামের ঐতিহ্যে তোয়াক্কা না করে একের পর এক ঘাট বন্ধ করে যাচ্ছে। ঐতিহ্যবাহী সদরঘাট ও অভয়মিত্র ঘাট এখন বিলুপ্ত করার পরিকল্পনা করেছে। যা চট্টগ্রামবাসী কখনও হতে দেবে না। মাস্টার দা সূর্যসেনের স্মৃতি বিজড়িত অভয়মিত্র ঘাট ও ১৬৬৬ সালে মোগল সুবেদার শায়েস্তা খা স্থাপিত বাংলাবাজার ঘাট বিলুপ্ত করে লাইটারেজ জেটি নির্মাণের পরিকল্পনা করা হচ্ছে। যা ২৩টি সাম্পান মাঝিদের সংগঠন চট্টগ্রামবাসীকে সঙ্গে নিয়ে প্রতিরোধ করবে।

আলোচনা সভায় বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সাবেক সদস্য এডভোকেট আনোয়ার কবির বলেন, কর্ণফুলী বাংলাদেশের প্রাণ। কর্ণফুলীকে অবহেলা করার অর্থ সমগ্র বাংলাদেশের উন্নয়নকে বাধাগ্রস্থ করা।

চট্টগ্রাম আঞ্চলিক সাংস্কৃতিক একাডেমির চেয়ারম্যান আলীউর রহমানের সঞ্চালনায় কর্ণফুলী গবেষক ইদ্রিচ আলী বলেন, বন্দর মোহনা থেকে দশ মাইল উজানের নদীর উভয় তীর রক্ষার দায়িত্ব চট্টগ্রাম বন্দরের। কিন্তু তারা তা করছে না। বন্দরের চেয়ারম্যান আসে-যায়, কর্ণফুলী অবহেলিত রয়ে যায়। কর্ণফুলী দখল দুষণ রোধ করার কোন বিকল্প নাই। তাই বন্দরের বিষয়টি গুরুত্বসহকারে বিবেচনা করতে হবে।

x

Check Also

আরো আট নারী ও শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ

সাভারের আশুলিয়ায় বন্ধুদের সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে স্থানীয় একটি কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা দুই ...