Home / খেলা / সালাউদ্দিনের হাতেই বাংলাদেশের ফুটবলের ভার

সালাউদ্দিনের হাতেই বাংলাদেশের ফুটবলের ভার

চট্টগ্রাম, ৩০ মে (অনলাইনবার্তা): টানা তৃতীয়বারের মতো বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সভাপতি হলেন কাজী সালাউদ্দিন। দেশের এই কিংবদন্তি খেলোয়াড়ের হাতেই ফুটবলের ভার আরও চার বছরের জন্য তুলে দিয়েছেন ভোটাররা। নির্বাচনের এই জয়কে ‘ফুটবল ও সত্যের জয়’ বলে মনে করছেন সালাউদ্দিন।

রাজধানীর হোটেল র্যাডিসনে শনিবারের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী নরসিংদী-২ আসনের সংসদ সদস্য ও সার ব্যবসায়ী কামরুল আশরাফ খানকে হারান সালাউদ্দিন। ১৩৪টি ভোটের মধ্যে সালাউদ্দিন পেয়েছেন ৮৩টি, আশরাফের বাক্সে পড়েছে ৫০ ভোট। একটি ভোট বাতিল হয়।

বিকেল পাঁচটার খানিক পর প্রধান নির্বাচন কমিশনার মেজবাহ উদ্দিন ফল ঘোষণা করলে পরাজয় মেনে নেন আশরাফ।

“আমি হার মেনে নিয়েছি। ৫০ ভোটও কম ভোট না। নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে। সালাউদ্দিন চাইলে আমি তাকে ফুটবলের উন্নয়নে সহযোগিতা করবো।”

জয়ের পর প্রতিক্রিয়ায় সালাউদ্দিন বলেন, “(এ জয়) ফুটবল এবং সত্যের জয়। ফুটবল এবং সত্যের জয় হবেই।”

গত দুই মেয়াদে সালাউদ্দিনের সফলতা যেমন আছে, ব্যর্থতা নিয়ে সমালোচনাও কম হয়নি। অতীত ভুলগুলো শুধরে সামনের চার বছরে ফুটবলকে কোথায় দেখতে চান, এমন প্রশ্নের জবাবে সভাপতি দিয়েছেন কৌশলী উত্তর।

“কাজ করতে গেলেই সমালোচনা হয়; কাজ না করলে তো আর সমালোচনা হয় না। কি করব এবং আপনারা কি দেখতে চান, সে পরিকল্পনা আমি দুই দিন পরে বলব। সবে নির্বাচনটা শেষ হলো।”

২০০৮ সালে সালাউদ্দিন প্রথমবারের মতো বাফুফের সভাপতি হন। ২০১২ সালে দ্বিতীয় মেয়াদে ঘরোয়া ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থার প্রধানের দায়িত্ব পান স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের এই ফরোয়ার্ড।

ঘরোয়া ফুটবলের কিংবদন্তি সালাউদ্দিন ক্লাব ক্যারিয়ারের সোনালী সময়টা কাটান ঐতিহ্যবাহী আবাহনী লিমিটেডে; খেলেছেন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্রেও।

সংগঠক হিসেবেও ঘরে-বাইরে পরিচিত মুখ সালাউদ্দিন। দুই দফায় বাফুফে সভাপতির দায়িত্ব পালনের আগে ছিলেন সংস্থাটির সহ-সভাপতিও। দক্ষিণ এশিয়ান ফুটবল ফেডারেশনের টানা দুইবারের সভাপতি (বর্তমানেও দায়িত্বে আছে)। ফুটবলের বিশ্বসংস্থা ফিফার মার্কেটিং কমিটির সদস্যও ৬১ বছর বয়সী এই সাবেক ফুটবলার।

গত দুই মেয়াদে সালাউদ্দিনের সেরা সাফল্য ফুটবলকে নিয়মিত মাঠে রাখা। কোটি টাকার সুপার কাপ, বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক গোল্ড কাপের আয়োজন, লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনাকে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে আনা, সিলেট একাডেমি প্রতিষ্ঠা, নিয়মিত ফুটবলার তৈরির আসর পাইওনিয়ার লিগ সচল রাখা, ঢাকার বাইরে একাধিক ম্যাচ আয়োজন তার এই দুই মেয়াদের উল্লেখযোগ্য সাফল্য।

x

Check Also

আরো আট নারী ও শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ

সাভারের আশুলিয়ায় বন্ধুদের সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে স্থানীয় একটি কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা দুই ...