Home / খেলা / ৩০ সেপ্টেম্বরই আসছে ইংল্যান্ড

৩০ সেপ্টেম্বরই আসছে ইংল্যান্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক :

নিরাপত্তা নিয়ে পূর্ণ আশ্বাস পাওয়ার পর সেপ্টেম্বরের শেষ সপ্তাহে বাংলাদেশ সফরে আসার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)। বৃহস্পতিবার রাতে আগের সূচি অনুযায়ী সফরসূচি নিশ্চিত করে ইসিবি।

গুলশান হালমার পর নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা দেখায় ইংল্যান্ডের নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক দল বাংলাদেশে এসে পর্যবেক্ষণ করে যায়। এরপর তাদের প্রতিবেদনের ওপর ভিত্তি করে ইসিবি দলের খেলোয়াড় ও কোচিং স্টাফদের সঙ্গে বৃহস্পতিবার আলোচনায় বসে পর্যবেক্ষক দলটি। আলোচনা শেষে বাংলাদেশ সফর চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেয় ইংল্যান্ড।

কয়েকদিন আগে ইসিবির নিরাপত্তা পরামর্শক সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা রেগ ডিকাসন, পেশাদার ক্রিকেটারদের সংগঠনের প্রধান নির্বাহী ডেভিড ল্যাথারডেল ও ইসিবির ক্রিকেট পরিচালনা প্রধান জন কারের সমন্বয়ে গঠিত ইংলিশ নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক দল মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়াম, ফতুল্লা স্টেডিয়াম ও চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম পরিদর্শন করেন। খতিয়ে দেখেন ক্রিকেটারদের থাকার হোটেলের নিরাপত্তা ব্যবস্থাও। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীগুলোর কর্মকর্তাদের সঙ্গেও বৈঠক করেন তারা। ফিরে যাওয়ার আগে নিরাপত্তা নিয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন ইসিবির পরিদর্শক দল।

দেশে ফিরে ডিকাসনদের দেওয়া রিপোর্টের ওপর নির্ভর করেই সফরে আসার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিলো ইসিবি। বাংলাদেশ সরকারের দেওয়া নিরাপত্তার প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী আসন্ন সফর নিরাপদ হবে বলে তিন সদস্যের ঐ নিরাপত্তা পরিদর্শক দল রিপোর্টে ইসিবিকে জানিয়েছেন।

সূচি অনুযায়ী, বাংলাদেশ সফরে দুটি টেস্ট এবং তিনটি ওয়ানডে খেলতে ৩০ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ সফরে আসবে ইংল্যান্ড। ৭ অক্টোবর থেকে ১ নভেম্বর বাংলাদেশ ও ইংল্যান্ডের মধ্যকার ময়দানি লড়াই অনুষ্ঠিত হবে।

এর আগে গত বছরের অক্টোবরে নিরাপত্তা শঙ্কার অজুহাতে বাংলাদেশ সফর বাতিল করে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। তবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের কাছ থেকে নিরাপত্তার পূ্র্ণ আশ্বাস পেয়ে সেই পথে হাঁটেনি ইংল্যান্ড।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকে ইংলিশ ক্রিকেট দলের পাশাপাশি দেশটির সমর্থকদেরও বিশেষ নিরাপত্তার ঘোষণা দেন বিসিবির মিডিয়া কমিটের চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস।

বৃহস্পতিবারের মিটিং শেষে ইসিবির ক্রিকেট ডিরেক্টর অ্যান্ড্রু স্ট্রস বলেন, ‘খেলোয়াড় ও ম্যানেজমেন্টের পূর্ণ নিরাপত্তা সবসময়ই প্রধান্য পাবে। আমরা নিরাপত্তা নিয়ে সতর্কবার্তা পেয়েছি। যে কারণে বর্তমান পরিস্থিতি ভালোভাবে পর্যবেক্ষণ করেছি এবং নিরাপত্তা ইস্যুতে পূর্ণ ব্রিফ করেছি। উন্মুক্ত মিটিংয়ে আমরা খেলোয়াড় ও ম্যানেজমেন্টের সঙ্গে আলোচনা করেছি। তারা নানা ধরনের প্রশ্ন করেছেন। আমরা শিগগিরই বাংলাদেশ সফরের দল ঘোষণা করব।’

অবশ্য ইসিবি বাংলাদেশ সফর চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিলেও নিরাপত্তা নিয়ে কোনো ক্রিকেটারের আপত্তি থাকলে তিনি বাংলাদেশ সফর থেকে নাম প্রত্যাহার করতে পারবেন। ইংলিশ খেলোয়াড়দের জন্য এমন সুযোগ রেখেছে ইসিবি। দ্বিতীয় সন্তানের বাবা হতে যাওয়া টেস্ট অধিনায়ক অ্যালেস্টার কুক বাংলাদেশ সফরে যাবেন কি না সেটি নিয়েও রয়েছেন দোটানায়।

একই অবস্থা স্টুয়ার্ট ব্রডের। বাংলাদেশ সফরে আসলে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টটি এই ইংলিশ পেসারের শততম ম্যাচ হবে। এমন মাইলফলক ম্যাচে যেকোনো খেলোয়াড়ই নিজের পরিবারের সদস্যকে পাশে দেখতে চাইবেন। তবে নিরাপত্তা শঙ্কার কারণে ব্রডের পরিবার বাংলাদেশে না আসার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ব্রড কোন পথে হাঁটবেন সেটি এখনও ঠিক করেননি।

গত বুধবার ইংল্যান্ডের ওয়ানডে ও টি-টুয়েন্টি দলের অধিনায়ক এউইন মরগ্যান জানিয়েছিলেন, বাংলাদেশ সফর নিয়ে ক্রিকেটারদের ওপর জোর প্রয়োগ করবে না ইসিবি। তখন ইংল্যান্ডের বাংলাদেশ সফর নিয়ে একটা শঙ্কা থেকেই গিয়েছিল। বৃহস্পতিবার রাতের ঘোষণার পর সেই শঙ্কাও উবে গেল।

গত বছরের অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়া দল বাংলাদেশ সফর বাতিল করার পর চলতি বছরের শুরুর দিকে যুব বিশ্বকাপেও দল পাঠায়নি ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। ইংল্যান্ডও সেই পথে হাঁটলে বাংলাদেশের ক্রিকেট বেশ পিছিয়েই পড়ত। ইসিবির সবুজ সংকেতের ফলে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলতে শুরু করেছে দেশের ক্রীড়াঙ্গন।

আরডি/ এসএমএইচ // ২৬ আগস্ট ২০১৬

x

Check Also

আরো আট নারী ও শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ

সাভারের আশুলিয়ায় বন্ধুদের সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে স্থানীয় একটি কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা দুই ...